এখন সময় :
,
PopularITLtd.com
মেনু |||

নাজিরপুরে বিদ্যুৎ সংযোগ নামে চলছে রমরমা ঘুষ বানিজ্য

সুদেব মজুমদার (পিরোজপুর) : সারাদেশে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সংযোগ’ এই মর্মে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলা জুড়ে শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে কাজ করছে পিরোজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি। আর এরই মধ্যে এক শ্রেনীর দালাল এ প্রকল্পকে পুঁজি করে বিদ্যুৎ সংযোগ নামে চালাচ্ছে রমরমা ঘুষ বাণিজ্য। উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগের নামে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এই চক্র।

 

পল্লী বিদ্যুতের ঠিকাদার এবং অফিসের কর্মকর্তাদের ছত্রছায়ায় দালালচক্র বিদ্যুতের খুঁটি, লাইন স্থাপন এবং মিটার সংযোগ নিশ্চিত করার অজুহাতে আগ্রহী গ্রাহকদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। গ্রাহকদের অভিযোগ ঘুষ ছাড়া বিদ্যুৎ লাইন কিংবা সংযোগ কিছুই মিলছে না।

 

নাজিরপুর উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে ১ হাজার ১৯ কিলোমিটার বিদ্যুৎ লাইন সম্প্রসারণ কাজ চলছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি এসব কাজ বাস্তবায়ন করছে। যার মধ্যে ৫ শত ৪৩ কিলোমিটার লাইন স্থাপন করা হয়েছে এবং অবশিষ্ট ৪ শত ৭৬ কিলোমিটার লাইন স্থাপনের কাজ চলমান অবস্থায় রয়েছে।

 

গ্রাহকদের অভিযোগ করে বলেন, খুঁটি, লাইন এবং মিটার বাবদ গ্রাহকপ্রতি ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা করে ধার্য্য করা হয়েছে। গ্রামে গ্রামে তাদের দালালদের মাধ্যমে ধার্য্যকৃত টাকা আদায় করা হচ্ছে। কোনো কারণবশত দালালদের দাবি করা টাকা দিতে অস্বীকার কিংবা প্রতিবাদ করলে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে গ্রাহকদের বিদ্যুৎ সংযোগের দেয়া হচ্ছেনা। পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তাদের এবং ঠিকাদারের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমেই ইলেকটিশিয়ান নামক দালালচক্র এই সব অপকর্ম করছে। যার কারণে নাজিরপুর পল্লী বিদ্যুতের সাব জোনাল অফিসটি দালালচক্রের আখড়ায় পরিণত হয়েছে।

 

গত ৮ অক্টোবর উপজেলার শাখারীকাঠী ইউনিয়নের বৈবুনিয়া গ্রামে নতুন সংযোগের জন্য টাকা তুলতে গেলে উপজেলার সাচিয়া অভিযোগ কেন্দ্রের লাইনম্যান শহিদুল ইসলাম স্থানীয়দের হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন। অভিযোগ রয়েছে লাইনম্যান শহিদুল সংযোগের নামে গ্রাহকদের কাছে টাকা তুলে আসছে।

 

সম্প্রতি বাবুল নামে এক দালাল উপজেলার দীর্ঘা ইউনিয়নের লেবুজিলবুনিয়া গ্রাম থেকে নতুন সংযোগের নামে টাকা তুললে স্থানীয় ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম বাঁধা দেওয়াতে ওই দালাল ইউপি সদস্যের উপর চড়াও হয়ে ওঠে।

 

অপরদিকে উপজেলার মাটিভাঙ্গা ইউনিয়নের হোগলাবুনিয়া চরপাড়ায় নতুন বিদ্যুৎ লাইন স্থাপনের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে লাইন ম্যাপ। এখনও খুঁটি স্থাপন করা হয়নি তবে এই সুযোগে সক্রিয় দালালচক্র। বিদ্যুৎ দেবে সেই অজুহাতে চাহিদা মতো টাকা তোলা শুরু করেছে দালালরা। ওই গ্রামের নতুন চাহিত গ্রাহক মুক্তিযোদ্ধা মোতাহার আলী অভিযোগ করেন, লিয়াকত মোল্লা ও মোহাম্মদ আলী নামে দুই ব্যাক্তি তাদের এলাকা থেকে গ্রাহক প্রতি প্রথমিক ভাবে ২ হাজার টাকা করে তুলছে। তার কাছে ওই টাকা দাবী করলে তিনি টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে এর প্রতিবাদ করেন। তখন ওই দালাল চক্র তাকে বিদ্যুৎ সংযোগ না দেয়ার হুমকি দেন।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যাক্তি জানায়, ইলেকটিশিয়ান রাজু, সজল, ফিরোজ কিবরিয়া এবং ঠিকাদারদের সাথে সম্পৃক্ত জসিম ও মোহাম্মদ আলীসহ পল্লী বিদ্যুতের কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী দালালদের মাধ্যমে নানা অজুহাতে গ্রাহকদের কাছ থেকে এ টাকা নিয়ে নিচ্ছে।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্কুল শিক্ষক জানান, উপজেলার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য তাকেও দালালদের ৬ হাজার টাকা দিতে হয়েছে।

 

নাজিরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সাব-জোনাল অফিসের এজিএম সুমন সাহা বলেন, গ্রাহকদের সচেতন করার লক্ষ্যে এ বিষয় উপজেলায় মাইকিং করা হয়েছ। তার পরেও গ্রাহকরা টাকা দিলে আমাদের কি করার আছে।

 

 

আমাদের সকাল/মাহমুদ

Share Button
সম্পাদক: রিনি জাহান
নির্বাহী সম্পাদক : মো. কাইছার নবী কল্লোল
যোগাযোগ : ১/এ, (২য় তলা), পুরানা পল্টন লেন, ঢাকা-১০০০
ফোন নম্বর : ০১৬২১০৩৫২৮৯, ০১৬৩৪৭৩১৩৪২
Email: amadarshokal24@gmail.com