এখন সময় :
,
PopularITLtd.com
মেনু |||

ইতিহাসের সবচেয়ে বাজে বোলিং লঙ্কান রাজিথার

আমাদের সকাল ডেস্ক : ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই তার হাতে বল তুলে দিয়েছিলেন লঙ্কান অধিনায়ক লাসিথ মালিঙ্গা। অধিনায়ক নিজে প্রথম ওভারে খরচ করেন ৯ রান। দ্বিতীয় ওভার থেকে রাজিথার খরচা ১১ রান। শেষের তিন বলে ২টি বাউন্ডারি হাঁকান অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ।

 

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট বিবেচনায় প্রথম পাওয়ার প্লে’তে এক ওভারে ১১ রান খুব বেশি নয়। কিন্তু যদি পরের ৩ ওভারে খরচ করেন আরও ৬৪ রান, তাহলে তোলপাড় লেগে যাবে রেকর্ডবুকে। যেমনটা রোববার বাজে বোলিংয়ের রেকর্ডে ঝড় তুলেছেন শ্রীলঙ্কার পেসার কাসুন রাজিথা।

 

নিজের প্রথম ওভারে ১১ রান খরচ করার পর, ইনিংসের পঞ্চম ওভারে দ্বিতীয়বারের মতো বোলিং করতে এসে তিনি দেন ২১টি রান। তাকে আবার দশম ওভারে বোলিংয়ে ডাকেন মালিঙ্গা। এ ওভারে ছাড়িয়ে যান আগের দুই ওভারকেও, তিন ছয় ও এক চারে খরচ করেন ২৫ রান।

 

তবু হাল ছাড়েননি লঙ্কান অধিনায়ক। পেস বোলিং অলরাউন্ডার দাসুন শানাকা থাকার পরেও, ইনিংসের ১৮তম ওভারে ফের ডাক পড়ে রাজিথার। এই ওভারে তিনি হজম করেন দুইটি ৬ ও একটি ৪। সবমিলিয়ে ইনিংস শেষে তার বোলিং ফিগার দাঁড়ায় ৪-০-৭৫-০!

 

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ইতিহাসে এটিই সবচেয়ে বাজে বোলিংয়ে রেকর্ড। চলতি বছরের আগস্টেই ইউরোপের টুর্নামেন্ট রোমানিয়া কাপে চেক রিপাবলিকের বিপক্ষে ৪ ওভারে ৭০ রান খরচ করেছিলেন তুরষ্কের পেসার তুনাহান তুরান।

 

তুরানকে এই বিব্রতকর রেকর্ড থেকে মুক্তি দিয়ে এবার ৪ ওভারে ৭৫ রান দিলেন রাজিথা। আর টেস্ট খেলুড়ে দেশগুলোর মধ্যে এতদিন ধরে সবচেয়ে বাজে বোলিংয়ের রেকর্ড ছিল আইরিশ পেসার ব্যারি ম্যাকার্থির। ২০১৭ সালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৪ ওভারে ৬৯ রান খরচ করেছিলেন তিনি।

 

তবে সবধরনের টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে অল্পের জন্য লজ্জার রেকর্ডটি নিজের করতে পারেননি রাজিথা। বছর দুয়েক আগে ইংল্যান্ডের ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে ইয়র্কশায়ারের বিপক্ষে ৪ ওভারে ৭৭ রান খরচ করেছিলেন নর্দাম্পটনশায়ারের ডানহাতি পেসার বেন উইলিয়াম স্যান্ডারসন।

 

 

আমাদের সকাল/মাহমুদ

Share Button
সম্পাদক: রিনি জাহান
নির্বাহী সম্পাদক : মো. কাইছার নবী কল্লোল
যোগাযোগ : ১/এ, (২য় তলা), পুরানা পল্টন লেন, ঢাকা-১০০০
ফোন নম্বর : ০১৬২১০৩৫২৮৯, ০১৬৩৪৭৩১৩৪২
Email: amadarshokal24@gmail.com